গরমের মৌসুমে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেয়। রোদে বাইরে বের হতে অনেকেরই নাজেহাল অবস্থা। ঘামে অসহ্য হয়ে পড়ে বাইরে চলাফেরা করা। বিশেষ করে এ সময় ছোট-বড় সবাই ঘামাচির যন্ত্রণায় ভোগেন।

একবার ঘামাচি হলে তা কমতে সময় লাগে। সারা শরীর যেমন লালচে ফোস্কায় ভরে যায়, তেমন তাতে ব্যথা-চুলকানিও হয়। তা কমানোর জন্য কেউ দিনে কয়েকবার করে গোসল করেন, কেউ আবার বাজারে বিক্রি হওয়া ঘামাচির রকমারি পাউডার মাখেন। কিন্তু তাতে সাময়িক আরাম হলেও ঘামাচির জ্বালা আবার ফিরে আসে।

পাঁচটি উপায়ে কমাতে পাররেন ঘামাচির যন্ত্রণা

১. ঘামাচি কমানোর সবচেয়ে ভাল উপায় হল পরিচ্ছন্ন থাকা। যদি ঘামাচি কমানোর চেষ্টায় অনেক পাউডার মেখে রাতে ঘুমাতে যান, তবে সকালে উঠে তা-ও ভাল ভাবে সাবান দিয়ে গোসল করে পরিষ্কার করে ফেলুন।

২. নানা রকম ক্যালাইমিনো লোশন পাওয়া যায় আজকাল। ঘামাচি কমাতে সেসব বেশ কার্যকর। তেমন কিছু ব্যবহার করতে পারেন।

৩. বারবার গোসল করেন এ সময়ে? গোসলের পানিতে মিশিয়ে নিতে পারেন লেবুর রস কিংবা নিম পাতা ভেজানো পানি। তাহলে দ্রুত আরাম মিলবে ঘামাচির যন্ত্রণা থেকে।

৪. সুতির পোশাক পরুন। সেই সঙ্গে তা হতে হবে ঢিলেঢালাও। এই সময়ে গায়ের সঙ্গে লেগে থাকা কোনও পোশাক পরলে ঘামাচির যন্ত্রণা আরও বেড়ে যেতে পারে।

৫. শরীর ভিতর থেকে গরম হয়ে গেলে ঘামাচি বাড়ে। ফলে গ্রীষ্মকালে বেশি করে তরল পান করুন। লেবুর রস, ডাবের পানির মতো পানীয় বেশি করে পান করার অভ্যাস করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here