ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে স্কুলছাত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আরমান (১৭) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার পানিশ্বর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

আরমান ওই এলাকার এলাই মিয়ার ছেলে। সে পানিশ্বর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। অন্যদিকে আহত শিক্ষার্থী আঁখিকে (১৪) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে একই বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয়রা জানায়, বাজারের একটি ভবনে পানিশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম প্রাইভেট পড়ান। বেলা ১১টার দিকে একটি ব্যাচ পড়াচ্ছিলেন তিনি। সাড়ে ১১টার দিকে পরের ব্যাচের শিক্ষার্থীরা আসতে থাকে। কয়েকজন শিক্ষার্থী ভবনের ছাদ খোলা দেখে সেখানে যান। এসময় ছাদের ওপরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী আঁখি অচেতন হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে নিচতলা থেকে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাদে যায় আরমান। আঁখিকে উদ্ধার করতে গিয়ে সে নিজেও বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ঘটনাস্থলে মারা যান।

এ বিষয়ে শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম বলেন, আমার বাড়ি উপজেলার কালিকচ্ছে। সম্প্রতি পানিশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করি। অবসর সময়ে এ ভবনে প্রাইভেট পড়াই। ভবনের ছাদে আমি কোনো দিন যাইনি। শিক্ষার্থীরা নিজেরাই ছাদে যায়। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসাইন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here